বুধবার , আগস্ট ১২ ২০২০
Home / NEWS / দেশে বন্যায় ২৩ শিশুসহ ৩৮ জনের প্রাণহানি

দেশে বন্যায় ২৩ শিশুসহ ৩৮ জনের প্রাণহানি

দেশে বন্যায় ২৩ শিশুসহ ৩৮ জনের প্রাণহানি

চলতি বছর দুই দফার বন্যায় ছয় জেলায় ৩৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে ২৩ জনই শিশু। বন্যার পানিতে ডুবে, নৌকা ডুবে এবং সাপের কামড়ে এসব প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে জামালপুরে ১৭ জন, কুড়িগ্রামে ১৭ জন এবং লালমনিরহাট, সুনামগঞ্জ, সিলেট ও টাঙ্গাইলে একজন করে মারা গেছেন। জমালপুর ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা নায়েব আলী জানান, বন্যার প্রথম দফায় ১০ জনের প্রাণহানি ঘটেছে এবং দ্বিতীয় দফায় সাতজনের।

এর মধ্যে প্রথম দফায় বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছেন দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চর আমখাওয়া ইউনিয়নের লংকারচরের স্বপন মিয়ার মেয়ে ছামিয়া খাতুন (১০) ও চুকাইবাড়ি ইউনিয়নের হলকারচর উত্তর গ্রামের জরিফ উদ্দিনের ছেলে আল-আমিন (২২), মেলান্দহ উপজেলার দুরমুঠ ইউনিয়নের রুকনাই গ্রামের রেহান আলীর ছেলে সনি (১৪), মাদারগঞ্জের মালিজুড়ি ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে শান্ত (৭), একই উপজেলার জোড়খালী ভেড়া গ্রামের কমল ম-ল (৫৯), জোড়খালী রামচন্দ্রপুর গ্রামের নাজমুল করিমের মেয়ে নাছরিন জাহান (৮), ইসলামপুর উপজেলার কাচিহারা গ্রামের সোরহাব ফরাজির ছেলে জিয়া ফরাজি (২৫), পার্থশী ইউনিয়নের হারিয়াবাড়ী গ্রামের আনু মিয়ার ছেলে আল-আমিন (৮) ও আলপিনা (৬)। এছাড়া সাপের কামড়ে মৃত্যু হয়েছে চুকাইবাড়ি ইউনিয়নের চর হরিণ ধরদরা ইউনিয়নের সাজু মিয়ার মেয়ে রেনুকার (১৯)।

দ্বিতীয় দফা বন্যায় পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে মাদারগঞ্জ উপজেলায় চাঁদপুর গ্রামের মুরাদুজ্জামান (৬০), সাপধরী ইউনিয়নের কাসারী ডোবা গ্রামের নয়ন ম-লের ছেলে কটা ম-ল (৩৫), দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার খরমা বাটিপাড়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম হিরু (৬৫) ও সদর পৌরসভার কম্পপুর গ্রামের আব্দুল মজিদের মেয়ে মালা আক্তার (১৪) এবং লক্ষ্মীরচর ইউনিয়নের চরপাড়ায় সাদিয়া নামে ১২ বছরের এক শিশু বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছে।

এছাড়া নৌকাডুবিতে ইসলামপুর উপজেলার চিনাডুলি ইউনিয়নের ফলটুর মেয়ে বিদ্যুৎ বেগম (১৪), বামনা গ্রামের আব্দুল মিয়ার ছেলে আলফির (১২) মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে দুই দফার বন্যায় কুড়িগ্রামে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল শনিবার উলিপুরে বায়েজিদ ইসলাম (৮) ও মুন্নি খাতুন নামে দেড় বছরের এক শিশুর পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও একই দিন চিলমারী উপজেলার থানার হাট ইউনিয়নে বন্যার পানিতে ডুবে সুরুজ মিয়া (৫৫) নামে এক গ্রাম পুলিশ মারা গেছেন।

মাধবপুরে বড় ভাইয়ের হাতে ভাই খুন
এর আগে বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছেন চিলমারীর বড়াইমারি চর গ্রামের শান্ত মিয়া (১০), নাগেশ্বরীর মৃগাবাড়ি মোল্লাপাড়া গ্রামের বেলাল হোসেন (৫), চিলমারীর বয়লারপটর গ্রামের জামাল বেপারী (৫৫), উলিপুরের জানজাইগীর গ্রামের মুক্তাসিন (১৪ মাস), সদর উপজেলার মোগলবাসা ইউনিয়নের কথা রায় (২), সদর উপজেলার হলোখানা ইউনিয়নের জাহিদ (১২), নাগেশ্বরীর বল্লবেরখাস এলাকার আরাফাত আলী (৭), নুনখাওয়া ইউনিয়নের বাহুবল গ্রামের সৈয়দ আলী (৭০), চিলমারীর কাজলডাঙ্গা গ্রামের সুচরিতা (২), নাগেশ্বরীর চৌদ্দঘুরি গ্রামের মাহিদ (দেড় বছর), ভূরুঙ্গামারীর উত্তর বলদিয়া গ্রামের আব্দুল আওয়াল (৪০), নাগেশ্বরীর ব্রহ্মতর গ্রামের লামিয়া খাতুন (২), মাদারগঞ্জ গ্রামের কেয়া আক্তার মীম (১০), চিলমারীর সবুজপাড়া গ্রামে রাকু (১৫)।

কুড়িগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মো. হাবিবুর রহমান জানান, গত ২০ জুন থেকে এ পর্যন্ত কুড়িগ্রামে বন্যার পানিতে ডুবে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ১৩ জনই শিশু। বন্যাকবলিতদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে কুড়িগ্রামের নয় উপজেলায় ৮৫টি মেডিকেল টিম কাজ করছে। মেডিকেল টিম বন্যার্তদের মাঝে প্রাথমিক চিকিৎসাসেবাসহ শিশু ও বৃদ্ধদের প্রতি যত্মশীল হওয়ার পরামর্শ দিয়ে আসছে।

Check Also

দোকান পাট খোলা রাখার সময় বাড়লো রাত ৯ টা পর্যন্ত

দোকান পাট খোলা রাখার সময় বাড়লো রাত ৯ টা পর্যন্ত পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে মঙ্গলবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *